Banner Add

কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর উপায় – কিভাবে কম্পিউটার ফাস্ট করতে হয়?

কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত

কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর উপায় না জানা থাকলে একপ্রকার চালক বিহিন গাড়ির মোত, সুতারাং বুস্তেই পারছেন কি বুঝাতে চাইছি। বর্তমান জীবনে কম্পিউটারের গুরুত্ব অপরিসীম। আমাদের দৈনন্দিন জীবনযাত্রা কম্পিউটার ছাড়া কল্পনা করা যাই না। ছোট বড় বিভিন্ন কাজের জন্য আমরা প্রত্যেকদিন বিভিন্ন ধরণের কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকি। যেকোন পেশার মানুষ হোক না কেন  কম্পিউটার ছাড়া যেন পরিপূর্ণতা লাভ করতে পারেনা।গান,মুফি,অফিসিয়াল কাজকর্মে,নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে আমরা কম্পিউটার ব্যবহার করে  থাকি।অনেক সময়  যাই আমাদের প্রিয় কম্পিউটারটি আগের মত দ্রুত কাজ করতে পারেনা।স্লো হয়ে যাই আমাদের কম্পিউটার। তখন আমরা দুইটি কাজ করে থাকি।  কম্পিউটার নষ্ট হয়েছে মনে করে টেকনেশিয়েনের কাছে যাই মেরামতের জন্য অথবা নতুন করে অপারেটিং ইনস্টল করি। তাই আজকের  লেখা কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর উপায় নিয়ে। কীভাবে কম্পিউটারের গতি বাড়ানো যাই বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব। আশা করি আপনারা নিম্নে আলোচিত কাজগুলো করলে ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের গতি বাড়াতে পারবেন।

  • Tend file রিমুভ করুন: প্রতিদিনের কাজের ফলে আমাদের কম্পউটারে অনেক টেন্ড ফাইল জমা হয়। টেন্ড ফাইলের কারণেও অনেক সময় কম্পিউটার স্লো হয়ে যাই।

যেভাবে Tend File রিমুভ করবেন: Windows বাটন চেপে ধরে R এ ক্লিক করুন। ডেক্সটপের নিচে যে সার্চ বক্স আসবে সেখানে temp লিখে ok ক্লিক করুন। সবগুলো ফাইল সিলেক্ট করে, ডিলিট করে দিন, কম্পিউটার অনেক দ্রুত হবে। এখানে জমে থাকা সবগুলো ফাইল আবর্জনা, তাই চিন্তার কোন কারণ নেই।

  • Disk cleanup: প্রতিদিন  কম্পিউটার ব্যবহারের ফলে অনেক সময় কম্পিউটারে অপ্রোয়জনীয় ফাইল জমা হয়ে থাকে যার কারণে কম্পিউটারের গতি কমে যাই। Disk cleanup টুলস ব্যবহার করে এসব অপ্রয়োজনীয়  ফাইল ডিলিট করতে পারেন,  অথবা c- cleaner সফ্যটয়ারটি ব্যবহার করতে পারেন।

যেভাবে Disk cleanup করবেনঃ Windows start> Disk cleanup একে একে সকল ড্রাইভ ক্লিক করুন। c ড্রাইভ ক্লিক করা বেশি জরুরি। একাজটি মাঝে মাঝেই করতে হয়।

Defragment and Optimize Drive: ইউন্ডোজ কম্পিউটারের জন্য গুরুত্বপূর্ণ টুলস। এর সাহায্যে হার্ডডিস্কে এর ডেটাকে কমপ্রেস করে সাজিয়ে রাখা যাই, যার ফলে কম্পিউটারের গতি বেড়ে যাই।

যেভাবে করবেন :  Windows start > Defragment and Optimize Drive ক্লিক করতে হবে। ধাপে ধাপে সবগুলো ড্রাইভে কাজটি করতে হবে।

  • SSD/ M.2 ব্যবহার করুন: হার্ডডিস্ক অনেক পুরানো প্রযুক্তি। হার্ডডিস্কের ট্রান্সফার স্পীড অনেক কম কারণ  এটি চাকতি ঘুরে ডেটা সরবরাহ করে। হার্ডডিস্কের সর্বোচ্চ গতি ৮০০০ আরপিএম। তাই পিসি যতই হাই কনফিগারেশনের হোক না কেন, হার্ডডিস্কের কারণে গতি কমে যাবে। হার্ডডিস্কের পরিবর্তে SSD/ M.2 ব্যবহার করলে পিসির গতি বেড়ে যাবে।
  • 1 সফট্ওয়ার ব্যবহার না করাপিসিতে লাইসেন্স করা বা অরজিনাল সফট্ওয়ার ব্যবহার করা হলে পারফরম্যান্স বেড়ে যাই এবং ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার ভয় থাকে না।
  • প্রোগ্রাম আপডেট করুন ও অপ্রোয়জনীয় সফটসফটওয়্যার আনইন্সটল করুন: কম্পিউটার থেকে অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার আনইনস্টল করে কম্পিউটারের গতি বাড়ানো যাই। অতিরিক্ত প্রোগ্রাম কম্পিউটারের র‍্যাম ও প্রসেসরের ওপর চাপ সৃষ্টি করে যা কম্পিউটারের গতি কমিয়ে দেই। অনেক সময় পিসি হ্যাং করে। কম্পিউটারের গতি বাড়াতে প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার গুলো আপডেট করুন। কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর উপায় না জানা থাকলে গুগল করে বা বিভিন্ন পোষ্ট পড়ে শিখে নিতে পারেন।

যেভাবে করবেন : Windows start > Control panel > Programs and Feature থেকে অপ্রোয়জনীয় সফটওয়্যার আনইনস্টল করুন। এগুলা কম্পিউটারের গতি কমিয়ে দেই।

  • অটো স্টার্ট প্রোগ্রাম বন্ধ করে কম্পিউটার ফার্স্ট করেনএ সমস্যায় অনেক কম্পিউটার ব্যবহারকারী ভোগেন। অনেক সময় কম্পিউটার ব্যবহার করার সময় অনেক অপ্রোয়জনীয় প্রোগ্রাম অটোমেটিক চালু হয়ে যাই ফলে কম্পিউটারের গতি কমে যাই। কম্পিউটারের গতি বাড়াতে অটো স্টার্ট প্রোগ্রাম বন্ধ করতে হবে।

নতুন করে অপারেটিং সিস্টেম সেট আপ করতে পারেন। অনেক দিন একই ধরনের অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করার ফলে ভাইরাসের কারণে অথবা  ক্র‍্যাসিং ফাইলের কারণে কম্পিউটারের গতি কমে  যাই।সে ক্ষেত্রে নতুন করে অপারেটিং সিস্টেম সেট আপ দিলে কম্পিউটারের গতি বাড়তে পারে।

  • মাদারবোর্ডে অনেক সময় ময়লা, ধুলা – বালি জমে। এটি কম্পিউটারে ৫০-৭০ % গতি কমিয়ে দেই এবং কম্পিউটারের জন্য খুব ভয়ংকর। তাই নিয়মিত মাদারবোর্ড পরিষ্কার রাখা উচিত। তবে ল্যাপটপ বা কম্পিউটার পরিষ্কার করার সময় সতর্ক হওয়া উচিত। ভালো হয় যদি সার্ভিস সেন্টারে পরিষ্কার করি
  • কম্পিউটারের র‍্যাম,  মাদারবোর্ড এবং বাস স্পীডের ওপর অনেকাংশ নির্ভর করে। সুতরাং আপনি চাইলেই র‍্যাম,প্রসেসর আপডেট করে কম্পিউটারের স্পীড বাড়াতে পারেন। শুধু এ দুইটা আপডেট করলে মাদারবোর্ডে সমস্যা হতে পারে।তাই মাদারবোর্ডের সাথে এ দুইটার কম্পাইল করে আপডেট করতে হবে।
  • অনেক সময় হার্ডওয়্যার সফটওয়্যারের কম্বিনেশন ঠিক না থাকলে,  ককম্পিউটার স্লো হয়ে যাই। যেমন: এন্ড্রয়েড  স্টুডিও ওপেন করলে ৪ জিবি র‍্যামের কম্পিউটারে আপনি আর কোন কাজ করতে পারবেন না।
  • Browsing history এবং Cooky  দূর করেন: Browsing History এবং Cooky সমূহ র‍্যামে জমা হয়ে র‍্যামের গতি কমিয়ে দেই। তাই প্রতিদিন Browsing history এবং Cooky ডিলিট করুন। এজন্য যেকোনো Browser খুলে Shift+ Ctrl+ Delete চেপে সবকিছু Delete করেন।
  • পিসির পারফরম্যান্স বাড়াতে আরাও একটা ভালো উপায় রয়েছে। তা হচ্ছে Performance option. স্টার্ট মেনুতে যেয়ে লিখে এন্টার দিলে Performance option উইন্ডো ওপেন হবে। সেখান থেকে নিজের মত কাস্টমাইজড performance নির্বাচন করা যাই।
  • নিয়মিত ড্রাইভ রিফ্রেশ করুন: পিসিকে সচল রাখতে নিয়মিত ড্রাইভ রিফ্রেশ করুন। এজন্য নিচের কোডটুকু টেক্ট ফাইলে লিখে Refresg.bat নামে সেইভ করুন।প্রতিদিন এটাতে ক্লিক করে ড্রাইভকে সচল রাখুন। Echo off cd/ tree C: tree D: tree E:
  • মাউস স্পিড বৃদ্ধি করুন: সহজেই মাউস স্পিড বাড়ানো যাই, যদি মাউস ধীরগতিতে চলে।HKEY > CURRENT > USER>Control Panel মাউসে ডাবল ক্লিক করলে মাউসের গতি বেড়ে যাই।
  • কম্পিউটারে বেশি র‍্যাম যোগ করুন: কম্পিউটারে গতি বাড়ানোর জন্য উচ্চ গতি সম্পন্ন র‍্যামের বিকল্প নেই।  উচ্চ গতিসম্পন্ন র‍্যাম বেশি যোগ করলে অনেকগুলো প্রোগ্রাম অনায়েসে রান করা যায়।
  • ভিজ্যুয়াল ইফেক্টগুলি সামঞ্জস্য করুন: কম্পিউটারে অনেক ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট থাকে যেগুলো অনেক তথ্যবহুল। তবে মাঝে মাঝে কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর জন্য ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট বন্ধ রাখতে হয়।
  • Windows auto update enabled রাখুন: অনেকেই Automatic windows update ফিচারটি disabled করে রাখেন। মনে রাখবেন, windows is  update  না করলে কম্পিউটার স্লো হয়ে যাই। এক্ষেত্রে নতুন windows সেট আপ না দেওয়া পর্যন্ত কম্পিউটার ফার্স্ট হয় না। তাই কম্পিউটারের গতি সচল রাখতে windows auto update enabled রাখুন।
  • Recycle Folder খালি রাখুন: যখন আমরা কম্পিউটার বা ল্যাপটপের কোন ফাইল ডিলিট করি, সেগুলো Recycle Folder এ জমা হয়। এভাবে অনেক ফাইল জমা হওয়ার কারণে কম্পিউটারের গতি কমে যাই। তাই কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ফার্স্ট রাখার জন্য Recycle folder খালি রাখুন।
  • ব্রাউজার পরিবর্তন করুন: অনেক ব্রাউজার আছে যেগুলা অধিকতর দ্রুত। যেমন,  Chrome র‍্যমের সিংহভাগ দখল করে রাখে একাধিক ট্যাব চালু রেখে। Safari ব্রাউজার অধিক দ্রুত কাজ করে।
  •  স্টার্টআপ প্রোগ্রাম আনইন্সটল করুন: এই প্রোগ্রামটি কম্পিউটার চালু হাওয়ার সাথে সাথে নিজে নিজে background এ শুরু হয়ে যাই। যেমন,  Analog clock, antivirus software, news feed ইত্যাদি। যার ফলে কম্পিউটারের কাজ করার প্রক্রিয়া স্লো হয়ে যাই।তাই এই প্রোগ্রামটি আনইন্সটল করা অতি জরুরী।
  • কম্পিউটার হার্ডওয়্যার আপগ্রেড করা যেতে পারে
  • ডাউনলোড ফোল্ডার আপ করুন:
  • File Explorer উইন্ডোজে সবচেয়ে ব্যবহৃত হয়। এটি চালু করতে যদি প্রতিবারই লোডিং বার চেক করতে হয়,  তাহলে ডাউনলোড ফোল্ডার অপটিমাইজেশন ই উপযুক্ত ব্যবস্থা।

কম্পিউটার ছাড়া আমাদের দৈনন্দিন জীবন অচল তাই কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর উপায় জানা খুবই জুরুরী। আমাদের বেশীর গুরুত্বপূর্ণ কাজ আমরা কম্পিউটারের মাধ্যমে করে থাকি। কিন্তু কাজ করতে করতে যখন দেখি কম্পিউটার অনেক স্লো হয়ে গেছে, তখন আমাদের অনেক ঝামেলায় পড়তে হয়। তাই ঝামেলা এড়াতে, কম্পিউটারের গতি ফিরে পেতে উপরের টিপসগুলো ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাবেন বলে আশা করা যাই।

Most Popular